12.1 C
New York
বুধবার, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২১
Home অপরাধ অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার মেরুদণ্ড ভাঙার চেষ্টা

অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার মেরুদণ্ড ভাঙার চেষ্টা

সাংবাদিকসহ বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিবাদী কর্মসূচি থেকে রোজিনা ইসলামের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি।

সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে আটকে রেখে হেনস্তা, নির্যাতন, মামলা ও গ্রেপ্তারের পর কারাগারে পাঠানোর মধ্য দিয়ে কার্যত সাংবাদিকতাকেই অস্তিত্বের সংকটে ফেলে দেওয়া হয়েছে। এর মাধ্যমে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার মেরুদণ্ড ভেঙে দেওয়ার চেষ্টা হচ্ছে—দলমত–নির্বিশেষে সাংবাদিকসহ বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনের প্রতিবাদী সমাবেশ, মানববন্ধনে ঘুরেফিরে এই বিষয়টিই বারবার এসেছে।

সাংবাদিক নেতারা বলছেন, রোজিনা ইসলামকে নির্যাতন ও মামলা দিয়ে হয়রানির ঘটনায় আমলারা নিজেদের সবচেয়ে ক্ষমতাধর হিসেবে জাহির করছেন। আর কিছু রাজনীতিবিদ দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের পক্ষে সাফাই গাইছেন। এটি সরকারের জন্যও ভালো নয়।

প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামকে গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে এবং তাঁকে নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকায় বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়। এসব কর্মসূচি থেকে আহ্বান আসে, সাংবাদিকতার স্বার্থে ঐক্যবদ্ধভাবে আন্দোলন চালিয়ে যেতে হবে।

আর সাংবাদিকদের অধিকার নিয়ে কাজ করা সংগঠন রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডারসও (আরএসএফ) এক বিবৃতিতে রোজিনা ইসলামকে অবিলম্বে মুক্তি দিয়ে বাংলাদেশের সরকারকে বিশ্বাসযোগ্যতা পুনরুদ্ধারের আহ্বান জানিয়েছে।

এর আগে জাতিসংঘ, অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা উদ্বেগ প্রকাশ করে রোজিনা ইসলামকে মুক্তি দিতে বলেছে। উল্লেখ্য, পেশাগত দায়িত্ব পালনে গত সোমবার সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে যাওয়ার পর সেখানে একটি কক্ষে প্রায় ছয় ঘণ্টা আটকে রেখে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করা হয় রোজিনাকে। একপর্যায়ে অসুস্থ হয়ে মেঝেতে লুটিয়ে পড়লেও তাঁর তাৎক্ষণিক চিকিৎসার ব্যবস্থা হয়নি। সেদিন রাত সাড়ে আটটার পর তাঁকে নেওয়া হয় শাহবাগ থানায়। সেখানে প্রায় ১১ ঘণ্টা পুলিশি হেফাজতে ছিলেন তিনি। এর মধ্যেই থানায় তাঁর বিরুদ্ধে অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টে মামলা দেওয়া হয়। মঙ্গলবার সকালে তাঁকে আদালতে হাজির করা হয়। সেখানে হাজতখানায় ছিলেন প্রায় তিন ঘণ্টা। আদালতে শুনানি শেষে প্রিজন ভ্যানে করে তাঁকে গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারে নেওয়া পর্যন্ত প্রায় ২৩ ঘণ্টা সময় লাগে। গতকাল তাঁর জামিনের বিষয়ে শুনানি হয়। আদালত রোববার এ বিষয়ে আদেশের দিন ধার্য রেখেছেন।

সাংবাদিকতায় ক্রান্তিকাল চলছে

রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাব প্রাঙ্গণে গতকাল ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে) আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে রোজিনাকে নিঃশর্ত মুক্তি দেওয়ার দাবি জানান সাংবাদিক নেতারা।

সমাবেশে প্রধানমন্ত্রীর সাবেক তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেন, রোজিনা ইসলাম সত্য প্রকাশ, অবাধ তথ্য ও মতপ্রকাশের স্বাধীনতার প্রতীক। বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতা ও মুক্ত গণমাধ্যমের প্রতীকও তিনি। রোজিনা যে তথ্য সংগ্রহ করতে গিয়েছিলেন, সেটি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নয়, জনগণের তথ্য। তাঁর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অবাধ তথ্য পাওয়ার অধিকার আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক।

জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক মনজুরুল আহসান বুলবুল বলেন, ভালো সাংবাদিক শুধু শুভাকাঙ্ক্ষী, বন্ধু তৈরি করে না, শত্রুও তৈরি করে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে রোজিনার সেই শত্রু তৈরি হয়েছে। যারা মিলিয়ন মিলিয়ন টাকা ঘুষ খায়, পাচার করে সেই চক্র রোজিনার বিরুদ্ধে।

দেশের সাংবাদিকতায় একটা ক্রান্তিকাল চলছে বলে সমাবেশে মন্তব্য করেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) একাংশের সভাপতি মোল্লা জালাল।

সভাপতির বক্তব্যে ডিইউজের সভাপতি কুদ্দুস আফ্রাদ বলেন, রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ এবং মামলায় যা লেখা হয়েছে, দুয়ের মধ্যে কোনো সম্পর্ক নেই।

ডিইউজের সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ আলম খান বলেন, সবচেয়ে বড় কষ্ট, উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠার বিষয় হলো, তথ্য সংগ্রহের ক্ষেত্রে সাংবাদিকদের নিপীড়নের শিকার হতে হচ্ছে। এসব নিপীড়নের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে হবে।

সমাবেশে বাংলাদেশ নারী সাংবাদিক সমিতি, বাংলাদেশ অনলাইন সাংবাদিক পরিষদ, বাংলাদেশ জার্নালিস্ট ফোরাম, বাংলাদেশ আন্তধর্মীয় লেখক ও সাংবাদিক সমিতি, ঢাকা জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন, টেলিভিশন ক্যামেরা জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ সাংবাদিক জোট, ঢাকা বিভাগ সাংবাদিক ফোরাম, বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম, লালমনিরহাট সাংবাদিক ফোরাম, শরীয়তপুর সাংবাদিক সমিতিসহ বিভিন্ন সংগঠনের সদস্যরা অংশ নেন।

এ ছাড়া রোজিনা ইসলামের মুক্তি ও মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে প্রেসক্লাবের সামনে গতকাল বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে ঢাকা মহানগর জাতীয় পার্টি, বাম গণতান্ত্রিক জোট, জাতীয় নারী জোট, জাতীয় শ্রমিক জোট, জাতীয় যুব জোট। এসব সমাবেশ থেকে বক্তারা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দুর্নীতিগ্রস্তদের বিচার, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবি জানান।

ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের আহ্বান

রোজিনাকে নির্যাতন ও গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে পৃথক কর্মসূচি পালন না করে সব সাংবাদিক সংগঠন মিলে মোর্চা তৈরি করে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানানো হয়। ডিআরইউ প্রাঙ্গণে আয়োজিত এই সমাবেশে সংগঠনের নেতারা বলেন, আগামীকাল শনিবার সব সাংবাদিক সংগঠনের নেতাদের একটি বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে। সেখানে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন নিয়ে আলোচনা হবে। তাঁরা বলেন, রোজিনার মুক্তি না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন থামবে না।

ডিআরইউর সভাপতি মোরসালিন নোমানী জানান, আজ শুক্রবার সকাল ১০টায় ডিআরইউ প্রাঙ্গণে মুখে কালো কাপড় বেঁধে প্রতিবাদ সমাবেশ করা হবে।

রোজিনা ন্যায়বিচার পাবেন কি না, তা নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেন জাতীয় প্রেসক্লাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাইনুল আলম।

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের একাংশের সভাপতি কুদ্দুস আফ্রাদ বলেন, রাষ্ট্রীয় গোপনীয় তথ্য যদি টেবিলে পড়ে থাকে, তাহলে স্বাস্থ্যসচিবের নামে মামলা হবে সবার আগে।

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের আরেক অংশের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশে সাংবাদিকদের এই আন্দোলন নজিরবিহীন।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় দুর্নীতির আখড়ায় পরিণত হয়েছে বলে মন্তব্য করেন হেলথ রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি তৌফিক মারুফ। তিনি বলেন, অনেক কষ্ট করে তথ্য সংগ্রহ করতে হয়। রোজিনার ঘটনায় স্বাস্থ্যসচিবসহ জড়িত সবাইকে অপসারণ করতে হবে। স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে জবাবদিহি করতে হবে।

দুপুর থেকে বিকেল সাড়ে চারটা পর্যন্ত চলে এই সমাবেশ। এতে সাংবাদিক নেতারা বলেন, অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার মেরুদণ্ড ভেঙে দেওয়ার চেষ্টা হচ্ছে।

রিপোর্টার্স অ্যাগেইনস্ট করাপশনের সাধারণ সম্পাদক আহমেদ ফয়েজ বলেন, সরকার জেনেবুঝেই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন করেছে, অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টের ব্যবহার করছে।

সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন ডিআরইউর সাধারণ সম্পাদক মসিউর রহমান খান, সাবেক সভাপতি রফিকুল ইসলাম, সাবেক সাধারণ সম্পাদক কবির আহমেদ খান ও রিয়াজ চৌধুরী, ডিক্যাবের সভাপতি পান্থ রহমান, কারা নির্যাতিত সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম কাজল প্রমুখ।

RELATED ARTICLES

প্রধানমন্ত্রী টিকা- রোহিঙ্গা ও জলবায়ু ইস্যু তুলে ধরবেন

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আসন্ন জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে তাঁর ভাষণে সারা বিশ্বে করোনাভাইরাসের টিকা বিতরণে সমতা, জলবায়ু পরিবর্তন এবং...

সন্তান পরিচয়ে বৃদ্ধাকে হোটেলে ফেলে রেখে গেল -ছেলে

‘আমার মা এখানে থাক, ওষুধ কিনে এনে নিয়ে যাচ্ছি’। ছেলে পরিচয়ে খাবার হোটেলে অজ্ঞান এক নারীকে বসিয়ে রেখে এভাবেই চলে যান ছেলে পরিচয়দানকারী এক...

বউ-শাশুড়ির নতুন মাইলফলক

বৈশাখী টিভির প্রচার চলতি ধারাবাহিক নাটক ‘বউ-শাশুড়ি’ নতুন এক মাইলফলকে উন্নীত হচ্ছে  ১৮ সেপ্টেম্বর। এ দিন নাটকটির  ২৫০তম পর্ব প্রচার হবে। নাটকটি সপ্তাহে তিন দিন...

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

প্রধানমন্ত্রী টিকা- রোহিঙ্গা ও জলবায়ু ইস্যু তুলে ধরবেন

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আসন্ন জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে তাঁর ভাষণে সারা বিশ্বে করোনাভাইরাসের টিকা বিতরণে সমতা, জলবায়ু পরিবর্তন এবং...

সন্তান পরিচয়ে বৃদ্ধাকে হোটেলে ফেলে রেখে গেল -ছেলে

‘আমার মা এখানে থাক, ওষুধ কিনে এনে নিয়ে যাচ্ছি’। ছেলে পরিচয়ে খাবার হোটেলে অজ্ঞান এক নারীকে বসিয়ে রেখে এভাবেই চলে যান ছেলে পরিচয়দানকারী এক...

বউ-শাশুড়ির নতুন মাইলফলক

বৈশাখী টিভির প্রচার চলতি ধারাবাহিক নাটক ‘বউ-শাশুড়ি’ নতুন এক মাইলফলকে উন্নীত হচ্ছে  ১৮ সেপ্টেম্বর। এ দিন নাটকটির  ২৫০তম পর্ব প্রচার হবে। নাটকটি সপ্তাহে তিন দিন...

আদালতের প্রতি সরকারের কোনোরূপ হস্তক্ষেপ নেই- ওবায়দুল কাদের

রাজনৈতিক উদ্দেশ্যমূলক মামলায় সরকারের পক্ষ থেকে দেওয়া হয়নি জানিয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, দেশের আইন আদালতের প্রতি...

Recent Comments